বুধবার, ১২ মে ২০২১
Logo
অভয়নগরের ভৈরব উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিন নড়াইলে মাদক-জুয়ায় সয়লাব

অভয়নগরের ভৈরব উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিন নড়াইলে মাদক-জুয়ায় সয়লাব

ভর দুপুরের প্রচন্ড গরমের তাপ। লোকালয় জনশূণ্য। বৈশ্বিক মহামারি করোনার তান্ডবে অস্থির গোটাবিশ্ব। তার ভিতর দিয়ে ভৈরব-উত্তর-পূর্ব অভয়নগর ও দক্ষিন নড়াইলের প্রশাসনের নাকের ডগায় প্রকাশ্যে জুয়ার আসর চললেও মাথাব্যথা নেই কারো।

 

এলাকাবাসির ধারণা, প্রসাশনের কতিপয় অসাধু পুলিশ কর্মকর্তার গোপন আতাতে চলছে জুয়া ও মাদকের আড্ডা। আবার জন মুখে প্রচার রয়েছে রাজনৈতিক মহলের ছত্র-ছায়ায় চলছে জুয়া ও মাদকের আড্ডা।

 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অভয়নগর উপজেলার ৭নং শুভরাড়া ইউনিয়নের গোপিনাথপুর গ্রামের উত্তর পার্শ্বে মাছের ঘের ও খেজুর বাগানে সকাল থেকে দুপুর, বিকাল থেকে গভীর রাত অবদি চলে জুয়ার আড্ডা। গত (শনিবার) সরেজমিনে খেজুর বাগানে ছদ্মবেশে গেলে দেখা যায় ৬ জন এক সাথে সাদা চটের উপর বসে তাস খেলার মাধ্যমে জুয়া খেলছে। ধীরে ধীরে তাদের সংখ্যা বেড়ে ১৩ তে পৌছায়। দেখা গেছে একাধিক মাদক মামলার আসামী সরবরাহ করছে গাজা।

 

অনুসন্ধানে জানাগেছে একই ইউনিয়নের ওয়ার্ডের প্রভাবশালী এক মেম্বর ও তার ভাইয়ের নেতৃত্বে চলে গোপিনাথপুরের মাদক ও জুয়ার আসর। রয়েছে দুটি পয়েন্টে পাহারাদার। অনুসন্ধানে আরো জানাগেছে, হিদিয়া দাড়ির উপর, ইছামতি গুচ্ছ পাড়ার মাছের ঘেরের পাড়ে ও খাল পাড়ে নিয়মিত ৪ জনের নেতৃত্বে জুয়ার আসর চলছে।

 

অভিযোগ রয়েছে নিয়োমিত দু-ডর্জনের ও বেশী জুয়া খেলোয়ার তারা এ অঞ্চলে জুয়া খেলছে। একই থানার ৬নং বাঘুটিয়া ইউনিয়নের তিনটি পয়েন্টে চলছে জুয়া এবং ৫টি পয়েন্টে চলছে মাদকের আড্ডা। অনুসন্ধানে জানাগেছে, ভূগিলহাট ঋষিপাড়ায় (পোতপাড়ার পাশে) বাগানের মধ্যে ভরপুর ভাবে চলছে জুয়ার আসর। স্থানীয় ঋষিপাড়ার তিন জনের নেতৃত্বে বহিরাগতরা এসে জুয়ার কোট পরিচালনা করে থাকে বলে জানিয়েছে এলাকা বাসী। অভিযোগ রয়েছে জুয়া খেলা বন্ধ রয়েছে এমন প্রচার কে হাতিয়ার করে ও ক্যাম্প পুলিশ ম্যানেজ করে জুয়াড়ীরা ধুমছে চালাচ্ছে আসর। তাছাড়া সিংগাড়ী ভাটার দক্ষিন পার্শ্বে মাঠের মধ্যে চলছে রাতের আঁধারে জুয়াখেলা।

 

এছাড়াও বাঘুটিয়া ইউনিয়নের জয়খোলা গ্রামের উত্তর পাশে এবং শ্রীধরপুর ইউনিয়নের মালাধরা বাজারের দক্ষিণের বাগানে রাতে বসে মাদকের আড্ডা।

 

অন্যদিকে দক্ষিন নড়াইলের পেরুলি দক্ষিণ বিলের মধ্যে প্রতিনিয়ত চলে জুয়ার আসর। স্থানীয় দোকানদার ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যক্তিগণ জানান, নড়াইল সদর থানার ১২নং বিছালী ইউনিয়নের চাকই, মধুরগাতী ও আকবপুর গ্রামে পূর্বের মতই চলছে মাদক।

 

জানাগেছে, ওই থানার খড়রিয়া ইউনিয়নে মাদক সরবরাহ হয়ে থাকে চাকই ও মধুর গাতী গ্রামের মাদক সিন্ডিকেটের মাধ্যমে। বিশেষ করে অভয়নগর থানার শুভরাড়া ইউনিয়নের বাশুয়াড়ী উত্তর পাড়া বিলের মধ্যে, শুকপাড়ার কানাপুকুরের পাড়ে, শুভরাড়ার নিকেরি পাড়ায়, রানাগাতী বালুর মাঠে, সিদ্ধিপাশার নদীর চরে, শ্মশানঘাটে, জয়রাবাদ বিলের মধ্যে মাছের ঘেরে, বাঘুটিয়া ইউনিয়নের পোতপাড়া ও পাইকপাড়া ঋষি পল্লীতে।

 

শ্রীধরপুর বাওড় এলাকায়, বর্ণি-হরিশপুর বাজারের পূর্ব পাশে, দক্ষিন নড়াইলের বিছালী ইউনিয়নের চাকই, মধুরগাতী, মির্জাপুর (নতুন রাস্তার) বিলের একাধিক ঘেরের পাড়ে, ৯নং সিংঙ্গাসোলপুর ইউনিয়নের নদীর চরসহ আরো কয়েকটি পয়েন্টে চলছে মাদকের পাইকারি ও খুচরা কেনাবেচা।

 

মাদকের ছোবলে ইতিমধ্যে একাধিক সংসার ভাঙ্গার খবর পাওয়া গেছে। সচেতন মহল জানিয়েছেন ‘টিন-এজার’ এখন মাদকের মোহে তাদেরকে এ অভ্যাস থেকে সরিয়ে আনতে না পারলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম নষ্ট হয়ে যাবে। তারা আরো জানিয়েছেন, এখনই মাদকের লাগাম টেনে ধরার উপযুক্ত সময়। এলাকার একাধিক ব্যক্তি দ্রুত মাদক বন্ধ ও জুয়ার আসর স্থায়ীভাবে বন্ধের জন্য প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংযুক্ত থাকুন