রবিবার, ১৩ জুন ২০২১
Logo
কঠোর বিধি-নিষেধের আওতায় নওয়াপাড়া পৌরসভার ৩টি ওয়ার্ড

কঠোর বিধি-নিষেধের আওতায় নওয়াপাড়া পৌরসভার ৩টি ওয়ার্ড

ঘরে থাকুন-সুস্থ্য থাকুন : প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হবেন না- মেয়র, পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বিধিনিষেধ বহাল থাকবে- ইউএনও

করোনা সংক্রমণ ও ভারতীয় ভেরিয়েন্ট বিস্তার রোধে নওয়াপাড়া পৌরসভার তিনটি ওয়ার্ডে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। তিনটি ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ সড়কে প্রয়োজন ছাড়া চলাচল বন্ধে ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে পৌরসভার ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে এ বিধিনিষেধ জারি করা হয়। বিশেষ করে নওয়াপাড়ার সর্বাধিক ব্যস্ততম ও যানজটপূর্ণ নওয়াপাড়া নূরবাগ টু মণিরামপুর সড়কে ব্যরিকেড দিয়ে এ কঠোর বিধি নিষেধের যাত্রা শুরু করা হয়। যদিও নূরবাগ টু মণিরামপুর সড়কে বিধি নিষেধের আওতায় ব্যারিকেড দেয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। হাসপাতাল রোডটি এ সড়ক সংশ্লিষ্ট হওয়ায় অনেকে হাসপাতাল রোডবন্ধ করার কথা তুলে নানা সমালোচনাও করেছেন। তবে সচেতন মহল বলছেন বৃহত্তর স্বার্থে সামান্য ঘুরে প্রায় একই সময়ে হাসপাতালে পৌছা সম্ভব। তারা জানান, ব্যরিকেড দেয়া নওয়াপাড়া নূরবাগ টু মণিরামপুর সড়কটি সাতক্ষীরাজেলা ও যশোরের কেশবপুর ও মণিরামপুর উপজেলার সাথে সংযোগ রয়েছে। ফলে এ সড়কেই রয়েছে মণিরামপুর, কেশবপুর ও খুলনার চুকনগর ও সাতক্ষীরাগামী টেকার, ইজিবাইক, মোটর সাইকেল ও মাহেন্দ্র স্ট্যান্ড। ফলে এ সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন স্থানীয়রা ছাড়ায় প্রতিনিয়ত বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার হাজার হাজার মানুষের যাতায়াত ঘটে। তাছাড়া ফুটপথে রয়েছে বিপুল সংখ্যক দোকানপাট। ফলে সড়কটিতে দিনভর যেন লোকজন গিজগিজ করে। সেই সাথে রয়েছে গাড়ি ঘোড়ার ব্যাপক চাপ। ফলে করোনা সংক্রমণ ছড়াতে সড়কটি ব্যাপক ঝুঁকিপূর্ণ। তারা এ সড়কটি ব্যারিকেড দেয়ায় কর্তৃপক্ষকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এস এম মাহমুদুর রহমান রিজভী জানান, গত এক বছরে অভয়নগরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৬০০। মৃত্যুবরণ করেছেন প্রায় ২০ জন। গত এক সপ্তাহে নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি ও ভারতীয় ভেরিয়েন্টের রোগী ধরা পড়ায় কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ইউনিটে চারজন ভারতীয় ভেরিয়েন্টসহ ১৮ জন রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। নওয়াপাড়া পৌরসভার মেয়র ও অভয়নগর উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক সুশান্ত কুমার দাস শান্ত জানান, পৌরসভার তিনটি ওয়ার্ড মহাসড়ক, রেল ও নৌ-বন্দর কেন্দ্রীক হওয়ায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনা সংক্রমণ বিস্তার রোধে তিনটি ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ সড়কে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। জনসচেতনা বাড়াতে বিভিন্ন পয়েন্টে প্রচার মাইক স্থাপন করা হয়েছে। ঘরে থাকুন প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হবেন না। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুর রহমান জানান, অভয়নগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নজরদারী বাড়ানো হয়েছে। ইউনিয়নগুলোয় করোনা পরিস্থিতি ভালো থাকলেও নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে ভারতীয় ভেরিয়েন্টসহ করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। যে কারণে ওই তিনটি ওয়ার্ডে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বিধিনিষেধ বহাল থাকবে। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দুইটি টিম অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

সংযুক্ত থাকুন