বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১
Logo
কালীগঞ্জে চাচার মৃত্যুর শোকে ভাইপোর মৃত্যু

কালীগঞ্জে চাচার মৃত্যুর শোকে ভাইপোর মৃত্যু

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে চাচা আবু তাহের মুন্সি (৯০) মারা যাওয়ার ২ ঘন্টার মধ্যেই শোকে মারা গেলেন ভাইপো হোসেন আলী মুন্সি (৪৫) (ইন্নালিল্লাহি-------------রাজেউন)।

 

প্রায় একই সাথে চাচা ভাইপোর মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাতে উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে। বৃহস্পতিবার চাচা -ভাইপোর একই সাথে জানাযা শেষে তাদের পারিবারিক কবরাস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

 

অল্প সময়ের ব্যবধানে একই বাড়িতে চাচা ভাইপের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহত হোসেন আলী মুন্সির ছেলে মামুন হোসেন জানান, তার দাদা আবু তাহের মুন্সি অত্যন্ত প্রবীন মানুষ। বার্ধক্যজনিত কারনে সম্প্রতি তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন।

 

গত এক সপ্তাহ ধরে পরিবারের সকলেই বাড়িতেই থাকতেন কখন কি হয়। আমার পিতা তার চাচাকে খুব ভালো বাসতেন। সারাজীবন নিজ কাজ শেষ করে তিনি প্রায়ই চাচার কাছে গিয়ে বসে খোঁজখবর নিতেন।

 

বুধবার রাত ১০ টার দিকে দাদা অর্থাৎ আমার বাবার চাচা মারা যান। তখনও আমার বাবা মরহুমের শয্যা পাশে বসা ছিলেন। এক পর্যায়ে আমার বাবা তার চাচার মৃত্যুর খবরটিও মোবাইলের মাধ্যমে আত্মীয় স্বজনদের জানিয়েছেন।

 

এছাড়াও মরহুমের নামাজে জানাযা ও দাফন কখন কিভাবে সম্পন্ন করা যায় তা নিয়েও পরিবারের সদস্যদের সাথে স্বল্প সময়ের বৈঠকও করেছেন। এর অল্প কিছুক্ষন পরেই বাবা হোসেন আলীর বুকে প্রচন্ড ব্যথা শুরু হয়। এরপর তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনিও মুত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

 

আপন চাচার সাথে ভাইপোও চলে গেলেন পরপারে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বালিয়াডাঙ্গা হাইকুল মাঠে একই সাথে চাচা ভাইপোর নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরাস্থানে মরহুমদ্বয়ের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

 

স্থানীয় সাংসদ আনোয়ারুল আজিম আনারসহ এলাকার কয়েক হাজার মানুষ জানাযায় শরিক হন। পরে সাংসদ আনায়ারুল আজিম আনার মরহুমদ্বয়ের শোকাহত পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের স্বান্ত¦না প্রদান করেন।

সংযুক্ত থাকুন