বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১
Logo
চৌগাছায় নানা অনিয়মের অভিযোগে ইউপি মেম্বর আনার বরখাস্ত

চৌগাছায় নানা অনিয়মের অভিযোগে ইউপি মেম্বর আনার বরখাস্ত

যশোরের চৌগাছার ফুলসারা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি মেম্বর ও আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন ওরফে আনারকে সাময়িক বরখস্ত করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগ।

 

ইউনিয়ন পরিষদের নানা খাতে কার্ড দেয়ার নাম করে অর্থ আত্মসাত করার অভিযোগে তাকে বরখস্ত করা হয় বলে জানা গেছে। গত ১১ ফেব্রুয়ারী স্থানীয় সরকার বিভাগ তাকে বরখাস্ত করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন।

 

সূত্র জানায়, ফুলসারা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত ইউপি সদস্য সংশ্লিষ্ঠ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ওরফে আনার ইউনিয়নের হতদরিদ্র মানুষের মাঝে চাউলের কার্ড, বয়স্ক ভাতার কার্ড, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, কাবিখা, ভিজিডি ও মাতৃত্বকালীন ভাতা দেয়ার নাম করে টাকা গ্রহন করে।

 

দিনের পর দিন কোন কার্ড বা ভাতার টাকা না দেয়ায় ভুক্তভোগীসহ এলাকাবাসি গত বছরের ৪ অক্টোবর দূর্ণীতি দমন কমিশন (দুদক) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে দুদক উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেন।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সমাজসেবা অফিসার মেহেদী হাসানকে তদন্তের দায়িত্ব দেন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে তিনি গত ২৫ নভেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন।

 

চলতি বছরের ১১ র্ফেরুয়ারী স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মোঃ আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত, যার স্মারক নং ৪৬,০১৭,০২৭,০০,০০,০২৮,২০১৪ (অংশ-১)-১৯৬ এক প্রজ্ঞাপনে মেম্বর আনোয়ার হোসেন আনারকে সাময়িক বরখাস্ত করেন।

 

প্রজ্ঞাপনে বলা হয় যেহেতু যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলাধীন ফুলসারা ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ আনোয়ার হোসেন (আনার) সংগঠিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩৪(১) অনুযায়ী উল্লেখিত ইইপি সদস্যকে তার পদ হতে সাময়িক বরখস্ত করা হলো।

 

কিছুটা দেরিতে হলেও তার বরখস্তের খবর এলাকায় পৌছালে ভুক্তভোগীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসে। ভুক্তভোগী একাধিক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, গরীবের টাকা আত্মসাতকারী মেম্বরকে সাময়িক বরখস্ত করলেই হবে না, তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

 

তার শাস্তি দেখে অন্য জনপ্রতিনিধিরা এ ধরনের অপরাধ করতে যেন সাহস না পাই। এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন আনারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এখনও এ ধরনের কোন কাগজপত্র হাতে পাইনি, তবে শুনেছি আমাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

 

যদি বরখাস্তের ঘটনা সত্য হয় তাহলে এটি হবে দুঃখ জনক, কেননা আমি কোন অপরাধ করেনি। আমি ঢাকাতে আছি, এলাকায় ফিরে এ নিয়ে কি করা যায় তা ভেবে দেখব।

সংযুক্ত থাকুন