বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১
Logo
ঝিকরগাছায় দু’টি কিডনি হারিয়ে মৃত্যু পথযাত্রী বাবলুকে বাঁচাতে তার অসহায় মায়ের আকুতি!

ঝিকরগাছায় দু’টি কিডনি হারিয়ে মৃত্যু পথযাত্রী বাবলুকে বাঁচাতে তার অসহায় মায়ের আকুতি!

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কুলবাড়ীয়া গ্রামের বাবলু হোসেনের দুটি কিডনিই নষ্ট হয়ে গেছে। দুটি কিডনি হারিয়ে বর্তমানে হাসপাতালের বেডে শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে সে। সংসারে অভাব অনটনের কারনে সঠিক চিকিৎসা না পেয়ে স্বামীর সু-চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিদের কাছে আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন বাবলুর অসহায় স্ত্রী শিরিনা খাতুন। বাবলু কুলবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে। [embed]https://www.youtube.com/watch?v=qREL7TC1Ga8[/embed]   বিগত ৪ বছর আগে বাবলু একটা ওষুধ কোম্পানিতে চাকুরি করতো। হঠাৎ তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা দেখা দিলে প্রথমে সাতক্ষীরার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তার কিডনির হালকা সমস্যা আছে বলে চিকিৎসক জানান। পরবর্তিতে বাবলু ভারতে চিকিৎসার জন্য গেলে সেখান কার চিকিৎসকও কিডনি নষ্ট হয়েছে বলে জানায়।   এর পর সেখানে কয়েকদিন চিকিৎসা নেওয়ার পর অর্থনৈতিক ঘাটতি দেখা দিলে তারা বাড়ীতে ফিরে আসে। কিছুদিন পর হঠাৎ তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে গত ৯ সেপ্টেম্বর তাকে প্রথমে সাতক্ষীরা হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর চায়না বাংলা হাসপাতালের আইসিওতে ভর্তি করা হয়।   কিন্তু অভাবের তাড়নায় সংসারে খরচ বহন করে চিকিৎসা চালানো সম্ভব হচ্ছিলো না। খরচ যোগাতে না পেরে সেখান থেকে বর্তমানে বাড়ীতে নেওয়া হয়েছে। বাবলুর স্ত্রী শিরিনা খাতুনের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, দেখ ভাল করার মতো বাবলুর কেউ নাই।   সংসারে হাল ধরতে বাবলুর স্ত্রী বর্তমানে বাড়ীতে সেলাই ম্যাশিন চালিয়ে সংসার চালানোর পাশাপাশি চিকিৎসা চালাতেন বাবলুর। কিন্তু একার পক্ষে এতবড় ব্যায়ভার বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমানে সপ্তাহে দুটি করে ডাইলোসিস দিতে হয় বাবলুর। একমাত্র মেয়ে ক্লাস সেভেনে পড়ে। অভাবের কারনে নানার বাড়ীতে থেকে পড়াশুনা করতে হয় তার।   ‘মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না, জীবনমুখি এমন একটি জীবনের গান মনে করে নয়ন ভরে কাঁদছে বাবলু ও পরিবার। মৃত্যু পথযাত্রী বাবলুর সাহায্যের জন্য এবং সার্বিক যোগাযোগের জন্য বিকাশ নং- ০১৭৭৩৪৮৯৪৫১, ০১৯৯৮৩০৫০০০।

সংযুক্ত থাকুন