বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১
Logo
নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা কেশবপুর : রাত পোহালেই ভোট

নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা কেশবপুর : রাত পোহালেই ভোট

রাত পোহালেই কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচন। প্রথমবারের মতো কেশবপুর পৌর নাগরিকেরা নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতির মাধ্যমে তাদের ভোটাধীকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছে।


প্রধান নির্বাচন কমিশনের এধরনের পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন কেশবপুর পৌরসভার ভোটাররা। এদিকে নির্বাচনকে কেন্দ্র আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা চোখে পড়ার মতো।


নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে গেছে গোটা কেশবপুর অঞ্চল। শুক্রবার শেষ দিনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থীসহ কাউন্সিলর প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার বেশ জমে উঠেছিল। মিছিল, স্লোগান, সমাবেশ ও পথসভায় মুখরিত ছিল কেশবপুর পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ড।


প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদেরকে নিয়ে ভোট পাওয়ার আশায় ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়েছেন। ভোটারদেরকে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রতিশ্রুতি ও নাগরিক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে ভোট চাইতে দেখা গেছে।


কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৩জন প্রার্থী, ৩টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৩ জন প্রার্থী এবং ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


পৌর মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র রফিকুল ইসলাম (নৌকা), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব আব্দুস সামাদ বিশ্বাস (ধানের শীষ) ও ইসলামী আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী আব্দুল কাদের (হাতপাখা)। সংরক্ষিত ওয়ার্ড-০১ এ বর্তমান কাউন্সিলর মেহেরুন্নেসা মেরী (আনারস), খাদিজা খাতুন (জবা ফুল), মিসেস রাশিদা খাতুন (চশমা) ও মঞ্জুয়ারা বেগম (অটোরিক্সা) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


সংরক্ষিত ওয়ার্ড-০২ এ বর্তমান কাউন্সিলর আছিয়া খাতুন (জবাফুল), আসমা খাতুন (আনারস), রুপা আইচ (টেলিফোন) ও শাহানা কবির (চশমা) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ড-০৩ এ বর্তমান কাউন্সিলর মনিরা খানম (জবাফুল), রিক্তা খাতুন (আনারস), মোছা তহমিনা পারভিন (বলপেন), আসমা খাতুন ( চশমা) ও জাহানারা খানম (টেলিফোন) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


সাধারণ ওয়ার্ড-১ এ বর্তমান কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান (উটপাখি), লিটন গাজী (টেবিল ল্যাম্প) ও সোহেল হাসান আইদ (পানির বোতল) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

ওয়ার্ড-২ এ বর্তমান কাউন্সিলর মশিয়ার রহমান (পানির বোতল) ও হাবিবুর রহমান (উটপাখি) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৩ এ বর্তমান কাউন্সিলর জামাল উদ্দীন (ফাইল কেবিনেট), আজিবর মোড়ল (গাজর), আব্দুর রাজ্জাক (টিউব লাইর্ট), জি এম কবির (উটপাখি), প্রদীপ চক্রবর্তী (ডালিম), মশিয়ার রহমান (ব্রিজ), কামরুজ্জামান (পানির বোতল), নাছির উদ্দীন (পাঞ্জাবি), মনিরুজ্জামান (টেবিল ল্যাম্প), মোরশেদ আলী (ব্লাক বোর্ড) ও শওকত হোসেন (ঢেড়শ) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৪ এ বর্তমান কাউন্সিলর আফজাল হোসেন বাবু (পানির বোতল), জাহাঙ্গীর আলম ( উটপাখি) ও কুতুব উদ্দীন বিশ্বাস (ডালিম) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৫ এ বর্তমান কাউন্সিলর বিশ্বাস শহীদুজ্জামান শহীদ (উটপাখি) ও মেহেদি হাসান (পানির বোতল) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৬ এ বর্তমান কাউন্সিলর জাকির হোসেন (পানির বোতল), আনিছুর রহমান (পানজাবি) ও মনোয়ার হোসেন (উটপাখি) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৭ এ বর্তমান কাউন্সিলরের ছেলে কামাল খান (পাঞ্জাবি), আক্তারুজ্জামান (পানির বোতল), ওয়াজেদ খান ডাবলু (ডালিম) ও মানিক লাল সাহা (উটপাখি) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৮ এ বর্তমান কাউন্সিলর মফিজুর রহমান (উটপাখি), খন্দকার মফিদুল ইসলাম (ব্রীজ), মিজানুর রহমান (পানজাবি), আব্দুল হালিম মোড়ল(ডালিম), আব্দুল গফুর মোড়ল ( ব্লাবোর্ড), সেলিম খান (টেবিল ল্যাম্প) ও আমিনুর রহমান (পানির বোতল) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


ওয়ার্ড-৯ বর্তমান কাউন্সিলর এস এম এবাদত সিদ্দিক বিপুল (পানির বোতল), আবুল কালাম আজাদ (উটপাখি) ও আব্দুল বারিক বিশ্বাস (ব্রীজ) প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।


কেশবপুর পৌরসভার ভোটারের সংখ্যা ২০ হাজার ৭শ ২৫ জন। যার মধ্যে পুরুষ ১০ হাজার ১শ ৮৫ ও নারী ভোটার ১০ হাজার ৫ শ ৪০ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।


উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন জানান, কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সংযুক্ত থাকুন