শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১
Logo
মণিরামপুরে চুরির অপবাদ দিয়ে এক দরিদ্র মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

মণিরামপুরে চুরির অপবাদ দিয়ে এক দরিদ্র মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

মণিরামপুরে সুমন রহমান নামে আলীম দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত সুমন উপজেলার খোজালিপুর গ্রামের দরিদ্র মশিয়ার রহমানের পুত্র। সে মণিরামপুর ফাজিল মাদ্রাসার আলীম দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।


এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও বুধবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি। পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে খোজালিপুর গ্রামে মাঝের পাড়ায় রাস্তার ওপর অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা মাদ্রাসা ছাত্র সুমন রহমানকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে ফেলে রেখে যায়।


পরে লোকমুখে জানার পর পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর গতকাল সকাল ৮টার দিকে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে দুপুর আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়।


হাসপাতালে ভর্তি ও তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক উলফাত আরা সুলতানা ও জরুরী বিভাগের চিকিৎসক সুমন কুমার নাগ। স্থানীয় সূত্র জানায়, ৮ মাস পূর্বে খোজালিপুর গ্রামের আয়নাল হোসেনের একটি মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে মিথ্যা চুরির অপবাদ দিয়ে ওই মাদ্রাসা ছাত্র সুমনকে মারপিট করা হয়। তবে, গত মঙ্গলবার রাতে তাকে কে বা কারা এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করেছে তা এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত করে বলতে পারেনি কেউ।


এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জিএম আহাদ আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, খোজালিপুর গ্রামের ইউপি মেম্বর আনিচুর রহমান তাকে মোবাইলে জানিয়েছেন, চুরির অভিযোগে স্থানীয় লোকজন মাদ্রাসা ছাত্র সুমনকে মারপিট করেছে। তবে, কি মালামাল চুরির অভিযোগ এনে তাকে মারপিট করা হয়েছে তা মেম্বর আনিচুর নিশ্চিত করেননি।


মণিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যুর খবর জানার পর তিনি নিজেই পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল খোজালিপুর গ্রামে যান।


নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হবে। তবে, এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে আটক করা যায়নি। মাদ্রাসা ছাত্র নিহতের ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

সংযুক্ত থাকুন