বুধবার, ১২ মে ২০২১
Logo
মোদীর ভাবমূর্তি ঝাঁকিয়ে দিয়েছে ভারতের কোভিড-১৯ সঙ্কট

মোদীর ভাবমূর্তি ঝাঁকিয়ে দিয়েছে ভারতের কোভিড-১৯ সঙ্কট

তার কোভিড-১৯ টাস্কফোর্স কয়েক মাস ধরে বৈঠক করে না। তার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জনগণকে মার্চে আশ্বস্ত করেছিলেন যে ভারত মহামারীর বিরুদ্ধে ‘লড়াইয়ের সমাপ্তির’ পর্যায়ে পৌঁছে গেছে।

 

এর কয়েক সপ্তাহ আগে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজেও বিশ্ব নেতাদের সামনে দাবি করেছিলেন, তার দেশ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী হয়েছে। গত জানুয়ারিতে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ভার্চুয়াল সভায় নরেন্দ্র মোদী যখন বক্তৃতা করছিলেন, ভিডিওতে তার পেছনে উড়ছিল ভারতের পতাকা।

 

তিনি বলছিলেন, ভারত “কার্যকরভাবে করোনাকে নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে মানবজাতিকে একটি বড় বিপর্যয়ের কবল থেকে রক্ষা করেছে।” এখন, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ ভারতকে এই মহামারীতে বিশ্বের সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশে পরিণত করেছে। এক দিনে চার লাখ রোগী শনাক্তের নতুন বিশ্বরেকর্ড ভারতকে দেখতে হয়েছে এক দিন আগে।

 

বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকা উৎপাদনকারী দেশ হয়েও করোনাভাইরাসের টিকার ঘাটতি দেখা দিয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে। হাসপাতালে জায়গা নেই, জীবন রক্ষাকারী অক্সিজেনের মজুদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। ভারতের বড় বড় শহরে প্রতিদিন শ্মশানগুলোতে হাজারো মানুষের দাহ হচ্ছে, লাশ পোড়া গন্ধ আর ভষ্মে ভারী হয়ে উঠছে বাতাস, আকাশ হয়ে উঠেছে ধূসর, এ যেন অনন্ত মৃত্যুর মিছিল।


ভারতের এই উল্টো যাত্রা নতুন এক জাতীয় আলোচনার সূচনা করেছে, যার কেন্দ্রে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, মোদীর ‘অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস’ এবং তার ‘কর্তৃত্বপরায়ণ নেতৃত্বের’ ধরনের একটি বড় দায় রয়েছে এমন পরিস্থিতির জন্য।

 

সমালোচকেরা বলছেন, ঝুঁকি না কাটলেও মোদীর প্রশাসন ভারতের এমন একটি ছবি প্রচার করতে চাইছিল, যাতে মনে হয়, দেশ আগের পর্যায়ে ফিরে এসেছে, ব্যবসা-বাণিজ্য আবার চালু হয়েছে।

সংযুক্ত থাকুন