বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১
Logo
যশোর এমএম কলেজের ১ম মুসলিম ছাত্রী

যশোর এমএম কলেজের ১ম মুসলিম ছাত্রী

১৯৪১ সালে যশোর কলেজ (পরে নাম হয় ‘মাইকেল মধুসূদন কলেজ (এমএমকলেজ) প্রতিষ্ঠার পর প্রথম যে চার জন ছাত্রী ভর্তি হয়েছিলেন তাদের একজন হলেন মনোয়ারা খাতুন। কলেজে তিনিই ছিলেন একমাত্র মুসলিম ছাত্রী।

কলেজে তাঁর সহপাঠীরা ছিলেন লীলা রায়, কল্যাণী দত্ত (সিভিল সার্জনের কন্যা) এবং শান্তি মুখার্জী। লীলা রায় এবং শান্তি মুখার্জী কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে আইএ পাশ করেন। বিয়ের পর মনোয়ারা খাতুন ১৯৫৩ খ্রিষ্টাব্দে রাজশাহী ইউনিভার্সিটির আন্ডারে আইএ, তারপর বিএ, বিএড এবং ১৯৬৬ সালে এমএ পাশ করেন। মনোয়ারা খাতুনের জন্ম যশোর সদরের কাজীপুর গ্রামে।

 

তার পিতার নাম লুৎফর রহমান। বৈবাহিক সুত্রে তিনি ঝিনাইদহের বাসিন্দা। তার স্বামীর নাম ডাঃ কে আহম্মেদ। বাসা ঝিনাইদহ শহরের কাঞ্চননগর পাড়ায়। ভাষা সৈনিক মনোয়ারা খাতুন ঝিনাইদহ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। সমাজকর্ম ও সাহিত্য চর্চায় তিনি পারদর্শী ছিলেন। ১৯৩৬ সালে তাঁদের পারিবারিক পরিবেশে হস্তাক্ষরে ত্রৈমাসিক পত্রিকা ‘প্রভাতী’ প্রকাশিত হতো।

 

মনোয়ারা খাতুন এবং তার বড় ভাই নুরুল ইসলামের লেখায় সমৃদ্ধ হয়ে পত্রিকাটি প্রকাশ হতো। মধুসূদন তারাপ্রসন্ন বিদ্যালয়ে পড়ার সময় ‘দীপিকা’ ম্যাগাজিনে তাঁর একটি লেখা প্রকাশ হয়েছিল। মনোয়ারা শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। এই মহিয়সি নারী সম্পর্কে এই প্রজন্মের অনেকেই জানেন না।

সংযুক্ত থাকুন