বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১
Logo
লাখো মানুষের মনে প্রজ্জ্বলিত এক আদর্শের নাম শাহ্ হাদিউজ্জামান

লাখো মানুষের মনে প্রজ্জ্বলিত এক আদর্শের নাম শাহ্ হাদিউজ্জামান

একটি নক্ষত্র। চিরস্থায়ী-চিরঞ্জীব এক আলোর ফাল্গুধারা। যার পতনেও দুরে যায় বিম্বিসা। রাজনীতির ধূসর বাগানে যে নক্ষত্র আলোকের ঝান্ডা হাতে এগিয়ে যায়। পথ দেখায় প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে। ভবিষ্যতের পুঞ্জিভুত সময়ের মূলে যে আলো দিশা হয়ে বাড়িয়ে দেয় হাত। মানবতার এক অমোঘ মন্ত্রে বেঁধে রাখে অগনন মানুষের হাসি-কান্না আর সুখের প্রদীপ। অণির্বান শিখা সম সে আলো মায়া-মমতা আর ভালোবাসার বেদিমূলে জ্বলে ওঠে। বিপন্ন মানবতার নিঃসঙ্গ আঁধারে যে আলো মানবতার ডালি হাতে ছড়িয়ে দেয় মানব প্রেমের অমোঘ পুস্পিত ভান্ডার।   [embed]https://www.youtube.com/watch?v=U3clRn1gVF8[/embed]   সেই নক্ষত্র আলো। পতনেও যার নিঃশেষ নেই। লাখ লাখ মানুষের মনে ধ্রুব তারা হয়ে জ্বল জ্বলে অক্ষরে রয়ে যায় সেই নাম। লাখো মানুষের মনে প্রজ্জ্বলিত এক আদর্শের নাম পীরজাদা শাহ্ হাদীউজ্জামান। একটি নাম। একটি ইতিহাস। একটি চিরঞ্জীব আলোর ফাল্গুধারা। যে নক্ষত্র-আলো দিশা হয়ে রবে প্রজন্ম থেকে প্রজান্মান্তরে। আজ বৃহস্পতিবার সেই নক্ষত্রের, বাংলাদেশের কিংবদন্তী রাজনীতিবীদ, লাখ লাখ মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার অবিসংবাদিত নেতা, ৮৮-যশোর-৪ আসনের ৫ বারের নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য, সততার প্রতিক, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের দিকপাল যশোর জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও দক্ষিণাঞ্চলের গণ মানুষের আদর্শের অহংকার পীরজাদা শাহ্ হাদিউজ্জামানের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী।   আজ তাই শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে দৈনিক নওয়াপাড়া পরিবারসহ অভয়নগর-বাঘারপাড়া ও বসুন্দিয়া অঞ্চলের লাখ লাখ মানুষ। কেবল অভয়নগর বসুন্দিয়াই নয় গোটা দক্ষিণবঙ্গসহ বাংলাদেশের প্রায় সকল অঞ্চলের মানুষের সুপরিচিত ও প্রাণের মানুষ শাহ্ হাদীউজ্জামানকে স্মরণ করছে। বিশেষ করে দক্ষিণবঙ্গের সাধারণ মানুষের মাঝে আজও শূন্যতা বিরাজ করে। আর অভয়নগরের মানুষতো কথায় কথায় একটাই উচ্চারণ, তার মতো লোক বেঁচে থাকলে আজ অভয়নগরের পরিবেশ, পারিপার্শ্বিকতা ও রাজনীতির ধরন বদলে যেত। সুশৃঙ্খল পরিবেশ ফিরিয়ে আনা সম্ভব হতো রাজনৈতিক ময়দানে। মানুষে মানুষে প্রেম, সহমর্মিতা, ভালোবাসা, স্নেহের ও উদারতার এক দৃষ্টান্ত পীরজাদা শাহ্ হাদীউজ্জামান। তিনটি বছর এ অঞ্চলের মানুষ শূন্যতা বুকে নিয়ে খুঁজে ফিরছে তাদের প্রাণের নেতাকে।   সর্বত্রই যেন হাহাকার আর শূন্যতা। বিশেষ করে যশোরের শিল্পশহর নওয়াপাড়াসহ গোটা অভয়নগরের মানুষ অভিভাবকহীনতায় মুষড়ে পড়েছে। রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রাণের নেতার অনুপস্থিতি যেন আজও মেনে নিতে পারেনা নেতা-কর্মীরা। দল মত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের মনে শ্রদ্ধার আসন পেতে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের ডাকে মৃত্যুর শীতল কোলে আশ্রয় নেয়া এ মহান নেতা কেবল একজন রাজনৈতিক নেতা হিসেবে নন, নন একজন সফল ও সৎ জনপ্রতিনিধি হিসেবে একজন মানবতার প্রতিক হিসেবে যুগ যুগ ধরে লাখ লাখ মানুষের মনে চীর জাগরুক থাকবেন। অগনিত মানুষের চলার পথের দিশা হয়ে পথ দেখাবে তার রেখে যাওয়া আদর্শ, সততা আর মানবিকতা।

সংযুক্ত থাকুন