বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২১
Logo
সাতক্ষীরায় মধ্যরাতে দফায় দফায় বোমার বিস্ফোরণ : আতংক

সাতক্ষীরায় মধ্যরাতে দফায় দফায় বোমার বিস্ফোরণ : আতংক

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ-ভাংচুর-লুটপাট-অগ্নি সংযোগ : আহত ২

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খাজরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিবাদমান দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ, ভাংচুর, লুটপাট, বোমা বিস্ফোড়ন ও অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

 

মধ্যরাতে দফায় দফায় বোমার বিস্ফোরণে গোটা এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। আতংকিত হয়ে পড়ে ঘুমন্ত এ জনপদ। গভীর রাতে প্রায় এক ডজন বোমার বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছেন। হামলায় দু’জন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

 

পুলিশ অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেফতার করেছে। গত রবিবার (১৩ ডিসেম্বর) রাতে খাজরার চেউটিয়া-কাপসন্ডা বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহত কামরুল ইসলামের স্ত্রী রোজিনা, দোকান মালিক আনারুলসহ একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গত রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে প্রথম দফা আক্রমন হয়।

 

রমজান গ্রুপের জিহাদ বিশ্বাসের পুত্র আবু রায়হান (১৯) এসময় অন্যদের সাথে রিজার্ভ বাসে চড়ে পটুয়াখালী ইটভাটায় শ্রমিকের কাজে যাচ্ছিল। কাপসন্ডা খোকনের দোকানের সামনে পৌছলে রউফ গ্রুপের খোকা, শুভ, সার্ব্বির, সাকিব, লাকি বিল্লাহ, কবির, আক্তার, মিজান, বাবু, হাসান, বিল্লাল, মহসিনসহ তাদের সহযোগিরা বাস আটকে রায়হানকে নামিয়ে নেয়।

 

এরপর নির্দয় ভাবে তাকে মারপিট করে গুরুতর আহত করে একটি ভ্যানে তুলে দিয়ে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এখবর জানাজানি হলে রমজান গ্রুপের লোকজন বেরিয়ে এলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এ সময় ১০/১২ টি বোমা বিস্ফোড়ন ঘটিয়ে এলাকায় ত্রাসের সৃষ্টি করে আনারুল বিশ্বাসের হার্ডওয়ারের দোকান ও পাশের সাইকেল পার্টস ও মেরামতের দোকান ভাংচুর করে দোকানে থাকা মূল্যবান মালামাল ও ক্যাশ বাক্সে থাকা ৮২ হাজার টাকা লুট করা হয়।

 

একই সাথে দোকানের সামনে কামরুল ইসলামের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। আক্রমনকারীরা কামরুলের উপর হামলা চালিয়ে জখম করে। এসময় বাজারের বিল্লাল হোসেনের চা-এর দোকানে ভাংচুরসহ কয়েকটি দোকানে ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থানে পৌছলে সংঘর্ষের সাথে জড়িতরা আত্মগোপনে যায়। মারাত্মক আহত আবু রায়হান ও কামরুলকে রাতেই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ অভিযান চালিয়ে চেউটিয়া গ্রামের আহম্মদ সরদারের পুত্র সাইফুলকে গ্রেফতার করেছে।

 

আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম কবির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও তদন্ত শুরু করেছে। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে সাইফুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।

সংযুক্ত থাকুন