শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০
Logo
সুন্দরবন-সংলগ্ন এলাকায় সব ধরনের শিল্পায়ন বন্ধের দাবি বিশিষ্টজনদের

সুন্দরবন-সংলগ্ন এলাকায় সব ধরনের শিল্পায়ন বন্ধের দাবি বিশিষ্টজনদের

সুন্দরবন-সংলগ্ন এলাকায় সব ধরনের শিল্পায়ন বন্ধ করার জোর দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা। শনিবার সকাল ১০টায় খুলনা নগরীর হোটেল টাইগার গার্ডেনে আয়োজিত ‘সুন্দরবন-সংলগ্ন অঞ্চলে শিল্পায়ন, পরিবেশ সংরক্ষণ ও মানবাধিকার’ শীর্ষক এক নাগরিক সংলাপ থেকে এ দাবি জানানো হয়। উপকূলীয় জীবনযাত্রা ও পরিবেশ কর্মজোট (ক্লিন) এবং সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড পার্টিসিপেটরি রিসার্চ (সিইপিআর)-এর উদ্যোগে নাগরিক সংলাপটি আয়োজিত হয়। সিইপিআর-এর চেয়ারপারসন গৌরাঙ্গ নন্দীর সভাপতিত্বে সংলাপটি সঞ্চালনা করেন সুন্দরবন একাডেমির নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক আনোয়ারুল কাদির। সংলাপের শুরুতে সুন্দরবন-সংলগ্ন অঞ্চলে শিল্পায়ন, পরিবেশ সংরক্ষণ ও মানবাধিকার বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ক্লিন-এর প্রধান নির্বাহী হাসান মেহেদী। মূল প্রবন্ধে হাসান মেহেদী বলেন, সুন্দরবন এবং এর সংলগ্ন প্রকৃতিগতভাবে সংকটাপন্ন এলাকায় (ইসিএ) সর্বমোট ১শ ৯০টি বিভিন্ন আকারের শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে, এর মধ্যে ৩২টি পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর বা লাল শ্রেণীভূক্ত। এই অবস্থায় তিনি সুন্দরবনের-সংলগ্ন ইসিএ এলাকায় অবস্থিত সব ধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠান বন্ধের জোর দাবি জানান। সংলাপে বক্তৃতা করেন সুন্দরবন একাডেমির নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক আনোয়ারুল কাদির, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড. দিলীপ কুমার দত্ত, ফরেস্ট্রি অ্যান্ড উড টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড. মাহমুদ হোসেন, একই ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক শরীফ হাসান লিমন, সমাপনী বক্তব্য রাখেন সভাপতি গৌরাঙ্গ নন্দী। নাগরিক সংলাপে আরও অংশ নেন বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি’র সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, শিক্ষা ও সংস্কৃতি চর্চাকেন্দ্র’র সমন্বয়কারী হুমায়ুন কবির ববি, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি’র বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাহফুজুর রহমান মুকুল, ইনিশিয়েটিভ ফর রাইট ভিউ’র সমন্বয়কারী জাভেদ খালিদ পাশা জয়, মোংলা উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শেখ নূর আলম, রামপাল প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমএ সবুর রানা, সুন্দরবন অঞ্চলে শিল্পায়নের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত শাহারুন্নেছা বেগম প্রমুখ।

সংযুক্ত থাকুন