বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১
Logo
হারিয়ে যাচ্ছে কালীগঞ্জের গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য গরুর গাড়ি

হারিয়ে যাচ্ছে কালীগঞ্জের গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য গরুর গাড়ি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা থেকে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ী। যা দুই গরু এক মানুষের দ্বারা চালিত কাঠ বাশেঁর উপকরনে বিশেষ তৈরি গরুর গাড়ি।

 

বিভিন্ন জেলা উপজেলার গ্রামবাংলার জনপ্রিয় গরুর গাড়ি এখন অধিকাংশ অঞ্চল থেকে বিলুপ্তির পথে। এখন এসব বাহন রূপকথার গল্পমাত্র। আমার গরুর গাড়ীতে বউ সাজিয়ে ধুত্তুর-ধুত্তুর-ধুত্তুর’ সানাই বাজিয়ে যাবো তোমার শশুরবাড়ী নিয়ে- জনপ্রিয় এই গানটি সিডি- টেলিভিশনসহ বিভিন্ন মাধ্যমে এখনও শোনা গেলেও উপজেলার কোথাও গরুর গাড়ীতে বউ সাজিয়ে নিয়ে যাওয়া এখন আর চোখে পড়ে না।

 

জানা যায়, ২০ থেকে ২৫ বছর আগেও গরুর গাড়ী ছাড়া বিয়ের কনে ও বরযাত্রীদের যাতায়াত কল্পনাই করা যেত না। বিয়েতে গরুর গাড়ীর ব্যবহার ছিল গ্রামবাংলার একটি অন্যতম ঐতিহ্য। এছাড়াও গ্রামাঞ্চলের এক এলাকা হতে অন্য এলাকার হাট-বাজারে পণ্য বহনে একমাত্র ভরসা ছিল গরুর গাড়ী।

 

ফসল ঘরে তোলা বা বাজার জাতকরণ থেকে জমির ধান কাটার পর সেই ধান, পাট ও অন্যান্য কৃষী পন্য সরবরাহ হত গরুর গাড়ীতে। অনেক অঞ্চলে রাস্তা পাকা না থাকায় এক সময় যান্ত্রিক যানবহন চলাচল করত না। ফলে গরুর গাড়িই ছিল একমাত্র ভরসা। তবে বর্তমানে নানা ধরনের মোটরযান চলাচলের কারণে কমে এসেছে।

 

তাই এখন আর তেমন চোখে পড়ে না। যুগের পরিবর্তনে-ডিজিটাল যুগের ছোঁয়ায় মানুষজন গরুর গাড়ীর পরিবর্তনে এখন ওই একই কাজে ব্যবহার করছে রিক্সা, ভ্যান, অটোরিক্সা, ভটভটি, নছিমন-করিমন, মাইক্রোবাস, কার ও বাস-ট্রাকসহ ইঞ্জিনচালিত নানান বাহনে। সে সময় ছিল গ্রাম বাংলার মানুষের কাছে নতুন ধান কাটার নবান্নের উৎসবে গরুর গাড়ীর প্রতিযোগিতার মানে নির্মল আনন্দের উপকরণ।

 

গরুর গাড়ী প্রতিযোগিতাও হত একেক এলাকার খোলার মাঠে। ওই খেলাটিও অনেকটায় হারিয়ে গেছে কালের আবর্তনে ডিজিটাল যুগের ছোঁয়ায়।

 

গরুর গাড়ী সম্পুর্ন হারিয়ে যাওয়ার শেষ সময়ে ছোটবেলায় দেখেছি আত্মীয় স্বজনসহ অন্যান্যদের বিয়ের সময় বর-কনে উভয় পক্ষই গরুর গলায় ঘণ্টা লাগিয়ে টোপর উঠিয়ে নানা রঙে গরু গাড়ী সাজিয়ে গরুর গলায় ঘুগরা ও ফুলের মালা পরিয়ে বর-কনে আনা নেয়া করত ওই গরুর গাড়ি কাপড় দিয়ে ঘিরে পর্দা বানিয়ে।

 

তাছাড়া এক সময়ে গ্রামবাংলায় কৃষকের ঘরে ঘরে শোভা পেত নানান ডিজাইনের গরুর গাড়ী। সেই সময়ের গরুর গাড়ী অন্যদের মালামাল পরিবহণের জন্য ভাড়াও দিয়েও অনেকে উপার্জন করত। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খুব অল্প কিছু দেখা যাওয়া প্রাচীন ঐতিহ্য গরুর গাড়িও চলাচল। তাই পুনরায় আগের মত চলাচল বৃদ্ধি এখন কার অনেকের কাছে সময়ের দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সংযুক্ত থাকুন